অডিও ও ভিডিওফি-ল-হা-লফিলিস্তিন এক্সক্লুসিভবাংলা প্রকাশনামিডিয়া

বিজয় কে দেবে? (ফিলিস্তিনি মুসলানদের হৃদয়স্পর্শী মুনাজাত)

বিজয় কে দেবে?

আমাদের এমন অনেক ভূখণ্ড আছে, যেগুলো অর্ধ-শতাব্দীরও বেশি সময় জুড়ে দখল হয়ে আছে। এর মধ্যে এমন ভূমিও আছে, যেখানে আমাদের তৃতীয় পবিত্রতম মসজিদ অবস্থিত। “…মুক্ত করো! মুক্ত করো!” – স্লোগান দেয়ার অনেকেই আছে। তারা মুক্ত করা নিয়ে বিস্তর কথা বলে। কিন্তু যখন সব কথা শেষ হবার পর, বাস্তবতার মুখোমুখি দাঁড়াতে হয়। প্রশ্ন করতে হয় কেন আজ উম্মাহর দুর্বল শরীর এ নর্দমায় এসে ঠেকেছে? পবিত্র ভূমিকে ঘিরে যা হচ্ছে, কেন তা আজ এতো বছর ধরে চলছে? কেন লজ্জা আর অপমানের মধ্যে দিয়ে আমাদের এতোগুলো বছর অতিক্রম করতে হচ্ছে? আমাদের উচিৎ চিন্তা করা, বিশ্লেষণ করা। .

ধরুন একটি কোম্পানি লস করলো। তখন কী হয়? কোম্পানির সিইও তার ম্যানেজার আর অন্যান্য উচ্চপদস্থ অফিসারদের নিয়ে মিটিংয়ে বসে। মিটিংয়ে সিইও সাধারণত টিপিকাল কিছু প্রশ্ন করে। .

কী করা যায়? কোন স্ট্র্যাটিজি অনুসরণ করলে গত মাসগুলোর মতো প্রফিট করা যাবে? আরা যা করছি তার মধ্যে কী কী পরিবর্তন আনতে হবে? যুদ্ধে পরাজয়ের পর, মুসলিম-অমুসলিম সব জেনারেলরা নিজেদের একটা ট্যাকটিকাল প্রশ্ন করে – কেন আমরা এ যুদ্ধে হারলাম? আমাদের এ হারের পেছনে কারণ কী ছিলো? . একইরকমভাবে যখন ১.৬ বিলিয়নের মুসলিম উম্মাহ, ১৬ মিলিয়নের কাছে পরাজয়, লাঞ্ছনা আর অপমানের তিক্ততম স্বাদ অনুভব করে, তখন প্রশ্ন করা দরকার – .

কেন? সাহাবীগণও পরাজিত হয়েছিলেন। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুম ওয়া আজমাইন। উহুদের যুদ্ধে সাহাবিরা পরাজিত হবার পর এ একই প্রশ্ন করেছিলেন – .

কী ব্যাপার! তোমাদের উপর যখন বিপদ এসেছে অথচ তোমরা তো (বদর যুদ্ধে তোমাদের শত্রুদের) এটা অপেক্ষা দ্বিগুণ বিপদ ঘটিয়েছিলে, এখন তোমরা বলছ, ‘এটা কোথা থেকে আসল’? (তাদেরকে) বল, ‘ওটা তোমাদের নিজেদের নিকট থেকেই এসেছে’, নিশ্চয় আল্লাহ সকল বস্তুর উপর ক্ষমতাবান। [সূরা আলে ইমরান, ১৬৫] .

ঠিক যেভাবে আমরা চিন্তা করছি কেন আজ আমরা অধঃপতনের সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছেছি, তেমনিভাবে উহুদের পরাজয়ের পর মদীনার ফেরার পথে সাহাবীগণও প্রশ্ন করেছিলেন – কেন?

. أَنَّىٰ هَٰذَ .

কেন আমাদের সাথে এমনটা হল? কোন স্ট্র্যাটিজি অনুসরণ করলে আমাদের আর হারতে হবে না? কেন আমরা হারলাম? কী কারণে? আল্লাহ তাদের প্রশ্নের জবাব দিলেন – .

যে সৎকর্ম করে সে তার নিজের জন্যই তা করে। আর যে অসৎকর্ম করে তা তার উপরই বর্তাবে। তোমার রব তাঁর বান্দাদের প্রতি মোটেই যালিম নন। [সূরা ফুসসিলাত, ৪৬] .

নিজেকে যাচাই করে দেখুন। উপকরণের দ্বারা মুক্তি আসে না, বরং শয়তানের তৈরি উপকরণ অধঃপতন ডেকে আনে। শয়তানের তৈরি করা পদ্ধতি দিয়ে দখল হয়ে যাওয়া ভূখণ্ড মুক্ত করা সম্ভব না। শয়তানের তৈরি ব্যবস্থা মুক্তির উপায় না, বরং অধঃপতনের কারণ। আপনি কার কাছ থেকে বিজয় আশা করছেন? বিজয় কে দেবে? .

জাতিসংঘ? আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়? বিশ্ব মানবতা? তুরস্ক, ইরান, “সৌদি”-আরব, মিশর, কিংবা বাংলাদেশ? গণতন্ত্র? .

আমরা কার সাহায্যের জন্য, কার দিকনির্দেশনার জন্য অপেক্ষা করছি?

ডাউনলোড

Video
—–
https://archive.org/download/15.-bijoy-ke-debe/15.%20bijoy%20ke%20debe.mp4
http://www.mediafire.com/15._bijoy_ke_debe.mp4/file
https://www.file-upload.org/7qrtil3jf4ki
https://jmp.sh/aYmzfsiB

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − 8 =

Back to top button