‘বাংলাদেশ যা পারেনি, সেটাই করে দেখালো পাকিস্তান’- ইসলামবিদ্বেষী তাসলিমা নাসরিন!

1
27

গত কয়েকদিন যাবৎ আসিফা বিবি নামক এক কুলাঙ্গার গুস্তাখে রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে মুক্তি দেওয়া বিষয়ক রায়টিকে নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে পুরো পাকিস্তান।

এই আসিফা বিবি নামক গুস্তাখে রাসূল সাঃ এর ইস্যু নিয়েই আরেক গুস্তাখে রাসূল (সাঃ) তসলিমা নাসরিন মন্তব্য করে বলে, ‘বাংলাদেশ যা পারেনি, পাকিস্তান সেটাই করে দেখালো। ’

কুলাঙ্গার ও গুস্তাখে রাসূল (সাঃ) আসিফা বিবিকে ফাঁসির সাজা থেকে মুক্তি দেওয়ায় পাকিস্তানের ইমরান খান সরকারকে ধন্যবাদও জানায় তসলিমা নাসরিন নামক কুপরিচিত সমালোচিত চরিত্রহীনা নারী।

এই প্রসঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে তসলিমা নামক বেহায়া এই নারী একটি টুইট করেছে। সেখানে সে লিখেছে, “৯০-এর দশকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে বাংলাদেশ আমাকে মারতে উদ্যত হয়েছিল। আমাকে দেশ থেকে বের কের দেওয়া হয়েছিল। আর কোনোদিন ঢুকতে দেওয়া হয়নি। পাকিস্তান অন্তত ধর্মবিদ্বেষের মামলায় আসিয়া বিবিকে মুক্তি তো দিয়েছে। নিরাপত্তাও দিচ্ছে। বাংলাদেশ যা পারেনি, সেটাই করল পাকিস্তান।”

কিন্তু, এই চরিত্রহীনার দাবিটা অনেকটাই অমূলক। বরং, বাংলাদেশ আর পাকিস্তান, উভয় রাষ্ট্রই চলে আল্লাহবিরোধী আইন দিয়ে, নাস্তিকদের নিরাপত্তা প্রদানে উভয় রাষ্ট্রই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ!  বাংলাদেশ আর পাকিস্তানের বিধানরচয়িতাদের মধ্যে তেমন কোন পার্থক্য দেখা যায় না।

বাংলাদেশে কীভাবে নাস্তিকদেরকে প্রশ্রয় দিচ্ছে এদেশের কথিত ধর্মনিরপেক্ষ তাগুত সরকার, তা প্রতিটি মুমিনের কাছেই স্পষ্ট।  তবে যাদের অন্তরে সিল মারা হয়ে গেছে তাদের কথা ভিন্ন । এদেশের নাস্তিক্যবাদী সরকার তো কুলাঙ্গার রাজীব হায়দার ওরফে থাবাবাবাকে দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধের প্রথম শহীদ বলে ঘোষণা দিয়ে মুমিনদের হৃদয়ের রক্তক্ষরণের মাত্রাকে বৃদ্ধি করেছে।

এবার পাকিস্তানের বিষয়টি নিয়েই বলি,পাকিস্তানে নাস্তিক্যবাদের বিপক্ষে অবস্থানকারী তাওহিদী জনতার আন্দোলন ঠেকাতে উঠে-পড়ে লেগেছে পাকিস্তানের ইমরান সরকার। সাধারণ তাওহিদী জনতার উপর ছোড়া হচ্ছে টিয়ারগ্যাস, গরম পানি ও বুলেট।

অর্থাৎ, ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিকদের হেফাজতের ব্যাপারে উভয় দেশের তাগুত শাসকবৃন্দেরই একনীতি! তারা বাক-স্বাধীনতার নামে নাস্তিকদেরকে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে নিয়ে কুটুক্তির সুযোগ প্রদান করেছে, অপরদিকে কথিত ধর্মনিরপেক্ষতার চাদরে নিজেদেরকে মুড়িয়ে নবী প্রেমিকদের গ্রেফতার করা, নির্যাতন, ফাঁসি দেওয়া অব্যাহত রেখেছে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here